এভারকেয়ার হসপিটালে মৃগী রোগদিবস পালিত

এভারকেয়ার হসপিটালে মৃগী রোগদিবস পালিত

স্বাস্থ্যঃ
৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা’র নিউরোলজি বিভাগে উদ্‌যাপন করা হলো আন্তর্জাতিক মৃগী রোগ দিবস।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেডিকেল সার্ভিসের পরিচালক ডাঃ সঞ্জয় কে. পাঠারে, সেই সাথে ছিলেন নিউরোলজি ও অন্যান্য বিভাগের কনসালটেন্টগণ ও হাসপাতালের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাবৃন্দ।

সিনিয়র কনসালটেন্ট, নিউরোলজিস্ট ও এপিলেপসি বা মৃগীরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ আলিম আক্তার ভূঁইয়া এপিলেপসি বা মৃগীরোগের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে তুলে ধরেন। পরবর্তীতে মৃগীরোগ সম্পর্কে আরো বলেন এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা’র নিউরোলজি বিভাগের সিনিয়র কনসালটেন্ট ও কোঅর্ডিনেটর- ডাঃ খন্দকার মাহবুবর রহমান, এবং সিনিয়র কনসালটেন্ট- ডাঃ সন্দীপ কুমার দাশ। মেডিকেল সার্ভিসের সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার ডাঃ আরিফ মাহমুদ সবশেষে সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ করেন।

বিশ্বব্যাপী ৪০ ধরনেরও বেশি এপিলেপসি বা মৃগীরোগ আছে, যাতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৬ কোটি। যাদের মাঝে ৮০% মানুষই স্বল্পোন্নত ও অনুন্নোত দেশে বসবাস করে। মৃগীরোগ নিয়ে অনেক ভুল ধারণা প্রচলিত আছে, বিশেষ করে অনুন্নোত দেশগুলোতে; এসব ক্ষেত্রে ডায়াগনস্টিক সংশয়গুলোও কাজ করে যেহেতু অন্য বেশ কিছু মেডিকেল কন্ডিশনের সাথে এর মিল রয়েছে। এক বা একাধিক অ্যান্টি-এপিলেপটিক ওষুধের মাধ্যমে প্রায় ৭০% মৃগীরোগীর ক্ষেত্রেই এই রোগ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।

এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা’য় আউটপেশেন্ট ও ইনপেশেন্ট-বেজড সকল মেডিক্যালি রেসপনসিভ এপিলেপসি রোগীদের জন্য সব প্রয়োজনীয় ডায়াগনস্টিক ও চিকিৎসা সুবিধা রয়েছে; সেই সাথে হাসপাতালে একটি পূর্ণাঙ্গ এপিলেপসি ক্লিনিক ও ইইজি মনিটরিং সুবিধাও শীঘ্রই চালু হচ্ছে।

এভারকেয়ার এই রোগ সম্পর্কে রোগীদের সচেতনতামূলক প্রোগ্রামগুলোও পর্যায়ক্রমে প্রচার করে থাকে। এপিলেপসি সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করার এবং এর প্রভাব সম্পর্কে বাংলাদেশের মানুষকে আরো অবগত করার আরেকটি পদক্ষেপ ছিলো এভারকেয়ারের এই আয়োজন।

আন্তর্জাতিক মানের স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে এভারকেয়ার হসপিটাল ঢাকা বাংলাদেশের একমাত্র JCI স্বীকৃত হসপিটাল। এটি এভারকেয়ার গ্রুপ-এর একটি অংশ, যা ২৯টি হসপিটাল, ১৬টি ক্লিনিক ও ৫৭টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার নিয়ে রয়েছে ২টি মহাদেশের ২৫টি শহরে; উন্নয়নশীল দেশগুলোতে মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার মিশন নিয়ে।

-শিশির

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter