ট্রাম্পের পরাজয় মেনে নেওয়ার ইঙ্গিত

ট্রাম্পের পরাজয় মেনে নেওয়ার ইঙ্গিত

আন্তর্জাতিকঃ
মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সকল অঙ্গরাজ্যের ফল ঘোষণা করেছে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলো। ঘোষিত ফলাফলে ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী ও সাবেক উপ-রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন বিশাল ব্যবধানে জয় লাভ করেছেন।

ফল ঘোষণার শুরুর দিকে দুই প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত থাকলেও শেষ পর্যন্ত বর্তমান রাষ্ট্রপতি ও রিপাবলিকান দলের প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প বড় ব্যবধানেই হেরেছেন।

১৩ নভেম্বর, শুক্রবার সর্বশেষ রিপাবলিকানদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত জর্জিয়ায় বাইডেনের জয় নিশ্চিত হয়। এর আগে অ্যারিজোনায়ও জয়লাভ করেন তিনি। বেশি পপুলার ভোট পাওয়ায় ওই দুই অঙ্গরাজ্যের ২৭ ইলেকটোলার কলেজ ভোট তার ঝুলিতে জমা পড়ে। আর উত্তর ক্যারোলাইনায় জয়ী হন ট্রাম্প। এ রাজ্যের ১৫টি ভোট পেয়েছেন তিনি।

ফলে ৫০ অঙ্গরাজ্যে মোট ৫৩৮ ইলেক্টোরাল ভোটের মধ্যে ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬টি। বিপরীতে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প পেয়েছেন মোট ২৩২টি ইলেক্টোরাল ভোট।

এবারের নির্বাচনের ঘোষিত ফলাফল ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঠিক উল্টো। ওই বছরের নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ৩০৬ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পেয়ে রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। অপরদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন পেয়েছিলেন ২৩২ ভোট।

এদিকে নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল আসার পর প্রথমবারের মতো জনসম্মুখে বক্তব্য দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদিন নির্বাচনী ফলাফল নিয়ে সরাসরি কোন মন্তব্য না করেননি এখনো পরাজয় মেনে না নেওয়া এই নেতা। তবে আগামী ২০ জানুয়ারি যে অন্য কোন প্রশাসন থাকতে পারে—সে বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার করোনা টিকা প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কিছুটা নিয়ন্ত্রণও হারিয়ে ফেলেন ট্রাম্প। এদিন তিনি যুক্তরাষ্ট্রে লকডাউন করতে চাননি বলেও মন্তব্য করেন। ট্রাম্প বলেন, ‘আদর্শগতভাবে, আমরা কোনো ধরনের লকডাউনে যাবো না। আমি তো যাবোই না। এই প্রশাসনই কোনো লকডাউনে যাবে না, আশা করি, ভবিষ্যতে যা কিছু ঘটুক—কে জানে কোন প্রশাসন হবে! আমার ধারণা, সময়ই বলবে!

এই বক্তব্যের মধ্যদিয়েই ট্রাম্প রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে জয়ী বাইডেনকে তার উত্তরসূরি হিসেবে মেনে নিয়েছেন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

-এসবি

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter