মোদির বিদায়ের আগে ৫ সমঝোতা, ৭ প্রকল্প স্মারক স্বাক্ষর

মোদির বিদায়ের আগে ৫ সমঝোতা, ৭ প্রকল্প স্মারক স্বাক্ষর

ডেস্ক রিপোর্টঃ
রাত সাড়ে নয়টায় মোদি বিশেষ একটি ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে নয়াদিল্লির পথে রওনা হন।

বিদায় বেলায় বিমানবন্দরে তাঁকে বিদায় জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।
ঢাকা ছাড়ার সময় মোদি তাঁর ভেরিফাইড টুইটার একাউন্টে টুইট করে জানান, ‘আমার সফরকালে বাংলাদেশের জনগণ যে আন্তরিকতা দেখিয়েছে তার জন্য আমি তাঁদেরকে ধন্যবাদ জানাই। আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও তাঁর উষ্ণ আতিথেয়তার জন্য ধন্যবাদ জানাই। আমার বিশ্বাস, এই সফর আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে আরও দৃঢ় করবে।’

বিদায়ের পূর্বে সফরের শেষ কর্মসূচিতে সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে গিয়ে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে দেখা করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির শীর্ষ বৈঠকে দুই দেশের মধ্যে পাঁচটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে। বৈঠকে দুই নেতা সাতটি উন্নয়ন প্রকল্পেরও উদ্বোধন করেন।

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে মোদি

দুই প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের সম্পর্ককে এক নজিরবিহীন নতুন উচ্চতায় উন্নীত করার ব্যাপারে অঙ্গীকার করেছেন। তাই গত পাঁচ দশকের সম্পর্কের মূল্যায়ন করে সামনের দিনগুলোর পথনকশা দুই দেশের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদ্‌যাপনে ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষকে উদ্দেশ্য করে সফরের দ্বিতীয় দিন শনিবার (২৭ মার্চ) বিকেল ৫টার পর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে শেখ হাসিনা তাকে স্বাগত জানান। প্রথমে দুই প্রধানমন্ত্রী একান্তে আলোচনায় বসেন। এরপর দুই দেশের প্রতিনিধিদের নিয়ে আলোচনায় বসেন তাঁরা। পরে বাংলাদেশ–ভারত শীর্ষ বৈঠকে সমঝোতা স্মারকগুলো সই এবং প্রকল্পগুলো উদ্বোধন হয় বলে কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে।

সমঝোতা স্মারকগুলো-

দুর্যোগ দমনে সহযোগিতা
ব্যবসা-বাণিজ্য বিকাশে অশুল্ক বাধা দূরের পদক্ষেপ
দুই দেশের জাতীয় ক্যাডেট কোরের মধ্যে সহযোগিতা
তথ্য যোগাযোগ বিস্তৃতি ও
রাজশাহীতে খেলার মাঠ বিষয়ে দুই প্রকল্প বাস্তবায়ন।

সাত প্রকল্প-

চিলাহাটি-হলদিবাড়ী রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন চালু
শিলাইদহের সংস্কারকৃত কুঠিবাড়ি
মেহেরপুরের মুজিবনগর থেকে পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া হয়ে কলকাতা পর্যন্ত স্বাধীনতা সড়ক
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় শহীদদের স্মরণে নির্মিত স্মৃতি সমাধি
বাংলাদেশের কাছে ভারতের ১০৯টি অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর
দুটি সীমান্ত হাট চালু এবং
স্মারক ডাকটিকিটের মোড়ক উন্মোচন।
এছাড়াও বঙ্গবন্ধু–বাপু ডিজিটাল জাদুঘরের উদ্বোধন শুক্রবার (২৬ মার্চ) হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনকে ঘিরে প্রক্রিয়াগত সমস্যা থাকায় স্বাধীনতা সড়ক এবং চিলাহাটি-হলদিবাড়ী রুটে যাত্রীবাহী ট্রেন উদ্বোধন করা হলেও। সড়কে চলাচল আর ট্রেনে যাত্রীদের যাতায়াত শুরু হতে কিছুদিন সময় লাগবে।

-কেএম

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter