স্বাস্থ্যঃ
“প্রজনন স্বাস্থ্য সকলের অধিকার, নিশ্চিত করাই আমাদের অঙ্গীকার” এই স্লোগানকে সামনে রেখে সিরাক-বাংলাদেশ Improving SRHR in Dhaka প্রকল্পের আওতায় আইপাস বাংলাদেশ এর সহযোগিতায় দুইদিন ব্যাপী গত ২৭ ও ২৮ সেপ্টেম্বর তারিখে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত ২০টি এলাকায় (সেক্টর -১২ উত্তরা, গোয়ালটেক, বাউনিয়া, রানাভোলা, আশকোনা, মাদারটেক, বাসাবো, পল্লবী ইস্টার্ন হাউজিং ও রূপনগর, কাফরুল, কামরাঙ্গীরচর, হাজারীবাগ- বোরহানপুর, হাজারীবাগ- বাড্ডানগর, লালবাগ, গোপীবাগ, জেনেভা ক্যাম্প, মোহাম্মদপুর আজম রোড, পীরেরবাগ, শেওড়াপাড়া এবং মগবাজার) পরিবার পরিকল্পনা দিবস ২০২২ উদযাপন করেছে।

প্রকল্পের আওতাভুক্ত “প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু” নামে পরিচিত স্বেচ্ছাসেবীরা কমিউনিটির সাধারণ মানুষদের সাথে নিয়ে র‍্যালি আয়োজন করেছেন।

পাশাপাশি তারা কমিউনিটির মানুষদেরকে নিকটস্থ জেনারেল প্র্যাক্টিশনার (চিকিৎসক) এর সরবরাহকৃত পরিবার পরিকল্পনা তথ্য, সেবা এবং গুরুত্ব সম্পর্কে অবহিত করেছেন।

পুরো কার্যক্রম আয়োজন এবং পরিচালনায় স্বেচ্ছাসেবীরা নিজ উদ্যোগে এগিয়ে এসেছেন এবং তাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন। উত্তরার সেক্টর-১২ এর ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ জাফরুল করিম বলেন, “সিরাক-বাংলাদেশ এর স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমের মাধ্যমে এবারই প্রথম কোনো জনসচেতনতামূলক র‍্যালি আয়োজন ও অংশগ্রহণ করেছি।

এই অভিজ্ঞতা আমার জন্য ছিল সম্পূর্ণ নতুন। র‍্যালি শেষে একজন রিকশাচালক আমাদের কাজ সম্পর্কে জানতে চান এবং এ সকল বিষয়ে তার জানার আগ্রহ আমাদের সত্যিই মুগ্ধ করেছে। তার দেখাদেখি আরও ২ জন রিকশাচালক এসে আমাদের সাথে কথা বলেছেন।”

পল্লবী (রূপনগর) এলাকার ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ ফাহিমা আক্তার জানান, “আমার জীবনে জনসম্মুখে দায়িত্ব নিয়ে করা প্রথম কার্যক্রম ছিল পরিবার পরিকল্পনা দিবস ২০২২ উদযাপন। ভয় ও উদ্দীপনা কাজ করলেও সাহসের সাথে আমি এবং আমাদের পুরো দল একসাথে কমিউনিটির মানুষদের নিয়ে সফলভাবে র‍্যালি আয়োজন করতে পেরেছি। এই দিবস উদযাপনের মাধ্যমে আমার জড়তা কমেছে এবং আমরা সবাই খুব আনন্দিত।”

ইস্টার্ন হাউজিং এলাকা থেকে ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ কাজী জাহিদুল ইসলাম রকি বলেন, “র‍্যালি করার সময় আশেপাশের সবাই খুব অবাক চোখে তাকিয়ে ছিলেন, অনেকেই কাছে এসে র‍্যালির বিষয় সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন।

অনেকে সংকোচ করলেও তারা বাকিদের পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের কথা শুনছিলেন।

এতে আমাদের মনে হয়েছে প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা সবারই প্রয়োজন, যা অনেকেই সংকোচের কারণে বলতে পারেন না।

স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে তাদের এ সংক্রান্ত তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার সুযোগ পেয়ে আমাদের খুব ভালো লাগছে।”

মোহাম্মদপুর আজম রোডের ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ ফারজানা পারভীন রচনা জানান, “এই দিবস উদযাপনের মাধ্যমে আমাদের দলের সকলের অসাধারণ অভিজ্ঞতা হয়েছে।

আমরা একটি উক্তির মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে চেষ্টা করেছি যা হলো – কৈশোরে গর্ভধারণ, ধ্বংস করে সারাজীবন।”

কাফরুল থেকে ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ আফিয়া আফরিন ইরিনা বলেন, “কমিউনিটিতে পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে আলোচনা করতে পেরে আমরা খুবই খুশি।

আমরা লক্ষ্য করেছি যে, সবাই এসব বিষয়ে জানতে এবং কোথায় গেলে এ সম্পর্কিত সেবা পাওয়া যাবে এসব বিষয়ে বেশ আগ্রহী।”

জেনেভা ক্যাম্প থেকে ‘প্রজনন স্বাস্থ্য বন্ধু’ সাফা জালাল সাফরিন জানান, “প্রজনন স্বাস্থ্য বিষয়ে কথা বলার সময় অনেকেই বলেছেন ছোটদের এসব জানতে নেই। কিন্তু আমরা যখন এই স্বাস্থ্য সেবার গুরুত্ব সম্পর্কে তাদেরকে বুঝিয়েছি, তখন তারা আমাদের কাজের প্রশংসা করেছেন।”

প্রতিটি এলাকায় ১০ জন স্বেচ্ছাসেবী কমিউনিটির আরও ২০ জন মানুষকে সাথে নিয়ে র‍্যালি আয়োজন ও সকলের মাঝে প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা সম্পর্কিত বার্তা সম্বলিত হাতপাখা বিলি করার মাধ্যমে দিবস উদযাপন সম্পন্ন করেন।

এই পুরো কার্যক্রম আয়োজনে সার্বিক সহায়তায় সিরাক-বাংলাদেশ এর প্রোগ্রাম ম্যানেজার তাসনিয়া আহমেদ, এসবিসিসি অফিসার – মনোয়ার হোসেন, খাদিজা কালাম, এবং মোঃ নাজমুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়াও প্রকল্পের ৩ জন প্যারামেডিক- আয়েশা সিদ্দিকা তন্নী, খাদিজাতুল কোবরা, এবং হালিমা খাতুন দুই দিন ব্যাপী এই কার্যক্রমে সহায়তা করেছেন।

-শিশির

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter