অতিরিক্ত মাংস খেলে কি কি সমস্যায় ভূগবেন

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ

শরীরের জন্য অতিরিক্ত কোন খাবারই ভাল ফল বয়ে আনে না। সেটা যদি অপরিহার্য কিছু হয়, তাও নয়। কোরবানীর মাংস পেয়ে আমরা যতদূর ইচ্ছা তা খেতে পছন্দ করি। কিন্তু অতিরিক্ত মাংস খেলে তা হতে পারে স্বাস্থ্য ঝুঁকির কারণ।

অস্ট্রিয়ার Arnold Lorand তাঁর Old Age Deferred গ্রন্থে পুরো একটি অধ্যায় জুড়ে অতিরিক্ত মাংস খাওয়ার বিপদ নিয়ে আলোচনা করেছেন। যারা দীর্ঘজীবী, তাদের খাদ্য তালিকায় মাংসের পরিমাণ থাকে কম। ১০০ বা তার চেয়ে বেশি আয়ু যারা পেয়েছেন এ রকম মানুষের আহার্যের খবর নিয়ে দেখা গেছে যে এদের মধ্যে অতিরিক্ত মাংসাহারী নেই বললেই চলে।

বেশির ভাগই একেবারেই মাংস খান না। আর অনেকে আছেন যারা বয়স বাড়তেই মাংস খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন।

জেনে নিন অতিরিক্ত মাংস খাওয়ার কি কি বিপদ আনেঃ

ক) মাত্রাধিক মাংস খেলে শরীরে টক্সিন বা বিষাক্ত পদার্থের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হয় লিভার, কিডনি, প্যানক্রিয়াস ইত্যাদি জরুরি প্রাণরক্ষক অঙ্গগুলো। এছাড়াও ক্ষতি হয় থাইরয়েড গ্রন্থির, সৃষ্টি হয় বাত, আরথ্রাইটিস ও Arteriosclerosis।

খ) অধিক মাংস খাওয়া প্রায়ই ক্যান্সারের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

গ) অতিরিক্ত মাংস খাওয়া কখনো কখনো ডায়াবেটিস ডেকে আনে। তাছাড়া ডায়াবেটিক রোগী বেশি মাংস খাওয়া শুরু করলে রোগের তীব্রতা আরো বেড়ে যায়।

ঘ) অত্যধিক মাংসাহার রক্তের ঘনত্ব বাড়িয়ে দিয়ে রক্ত চলাচল বিঘ্নিত করে। তাছাড়া এর ফলে শরীরে এত অ্যাসিডের সৃষ্টি হয় যে তার প্রভাব সামলাতে হলে খেতে হয় প্রচুর সবজি ও ফল।

ঙ) অতিরিক্ত মাংস খাওয়া অন্ত্রের peristaltic movment-এর জন্য সহায়ক নয় বলে মাংসাহারীদের কোষ্ঠকাঠিন্য ভয়াবহরূপে দেখা দেয়। এবং এর ফলে যে টক্সিন শরীরে জমে তা কিডনির জন্য মোটেও ভালো নয়।

চ) দীর্ঘদিন ধরে অতিরিক্ত মাংস খেল বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ব্যক্তির স্নায়বিক বিশৃঙ্খলা দেখা যায়।

ছ) যারা নিরামিষ খান তাদের তুলনায় মাংস খাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে নিউয়াসথেনিয়া এবং হিস্ট্রিরিয়া রোগের পরিমাণ বেশি। তাছাড়া নানা রকম স্নায়বিক বিকারে মাংস বর্জন করিয়ে দেখা গেছে রোগীর অবস্থার উন্নতি হয়েছে।

জ) যারা লিভারের রোগে ভুগছেন অতিরিক্ত মাংস খাওয়ার ফলে তাদের অবস্থা আরো খারাপ হয়। কিন্তু মাংস খাওয়া ছেড়ে দিলে অবস্থা অনেক নিয়ন্ত্রণে আসে।

আরবি

Print Friendly, PDF & Email