আলোকচিত্রী শহিদুলের জামিন নামঞ্জর

অনলাইন রিপোর্টঃ

আলোকচিত্রী শহিদুল আলমের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলার শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ ইমরুল কায়েস এ আদেশ দেন।

শহিদুল আলমের পক্ষে শুনানিতে নেন ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া ও ব্যারিস্টার সারা হোসেন। তার জামিনের বিরোধিতা করেন ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আবদুল্লাহ আবু।

গত ১৪ আগস্ট শহিদুল আলমের আইনজীবী তার জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন শুনানির জন্য এদিন ধার্য করেন।

গত ১২ আগস্ট রিমান্ড শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম ফাহাদ বিন আমিন চৌধুরী তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গত ৬ আগস্ট জামিন নামঞ্জুর করে শহিদুল আলমকে সাতদিনের রিমান্ড আদেশ দেন আদালত।

গত ৫ আগস্ট রাতে ধানমন্ডির বাসা থেকে শহিদুলকে ধরে নিয়ে যায় ডিবি পরিচয়ে একদল লোক। এরপর তাকে রমনা থানার তথ্যপ্রযুক্তি আইনে দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।

ডিবি (উত্তর) পরিদর্শক মেহেদী হাসান বাদী হয়ে রমনা থানায় মামলাটি করেন।

নিরাপদ সরকের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার ও ফেসবুক লাইভে আসেন শহিদুল আলম। পরে তাকে আটকের পর মামলা হয়।

মামলায় কল্পনাপ্রসূত তথ্যের মাধ্যমে জনসাধারণের বিভিন্ন শ্রেণির মধ্যে মিথ্যা প্রচার চালানো, উসকানিমূলক তথ্য উপস্থাপন, সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ ও অকার্যকর হিসেবে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে উপস্থাপন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটিয়ে জনমনে ভীতি ও সন্ত্রাস ছড়িয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র এবং তা বাস্তবায়নে ইলেকট্রনিক বিন্যাসে অপপ্রচারের অভিযোগ আনা হয় শহিদুলের বিরুদ্ধে।

-এসবি