অবৈধভাবে প্রবেশের চেষ্টাকালে ৬০০ আটক

অনলাইন ডেস্কঃ

এ বছর বাংলাদেশ সীমান্ত দিয়ে ভারতে অবৈধভাবে প্রবেশের চেষ্টাকালে কমপক্ষে ৬০০ জনকে আটক করার দাবি করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।

এরা শুধু বাংলাদেশী নাকি এর মধ্যে রোহিঙ্গারাও রয়েছেন তা স্পষ্ট করে বলা হয় নি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য হিন্দু। 

২৭ শে সেপ্টেম্বর ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো দিয়ে ভারতের প্রবেশ করার চেষ্টা করছে মিয়ানমারের রোহিঙ্গারা। এ জন্য সব রাজ্যকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

বলা হয়েছে, স্ব স্ব রাজ্যে বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের সংখ্যা জানাতে। তাদের ওপর নজর রাখতে বলা হয়েছে। আরও বলা হয়েছে তাদের বায়োমেট্রিক ডাটা সংগ্রহ করতে।

রাজনাথ সিং কেরালা সফরের আগের দিন রেলওয়ে প্রটেকশন ফোর্সও চিঠি দিয়েছে কেরালা ও তামিলনাড়–র রেল বিভাগীয় নিরাপত্তা বিষয়ক কমিশনারদের কাছে। তাতে বলা হয়েছে, রেলে স্বপরিবারে রোহিঙ্গাদের একটি গ্রুপ সফর করছে।

ওই চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, এসব রোহিঙ্গা উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর সব প্রান্ত থেকে এভাবে সফর করছে এবং তারা কেরালার দিকে অগ্রসর হচ্ছে। 

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, ভারতে বর্তমানে বসবাস করছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা। এর মধ্যে শুধু জম্মুতেই আছে প্রায় ৫৭০০ রোহিঙ্গা। এর মধ্যে আবার মাত্র ১৬ হাজার রোঙ্গিা জাতিসংঘের অধীনে নিবন্ধিত। ২০১২-১৩ সালে যখন রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংস নির্যাতন করা হয় তখন এসব রোহিঙ্গা দেশ ছেড়েছিল।

ওই একই রকম হামলা গত বছর আবার শুরু হয়। ফলে ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা এসে আশ্রয় নেয় বাংলাদেশে। গত বছর বাংলাদেশ সীমান্ত থেকে বিএসএফ ৮৭ রোহিঙ্গাকে আটক করে এবং ৭৬ জনকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়।

বিএসএফের একজন সিনিয়র কর্মকর্তা বলেছেন, ৩০ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৬৩৮ জন অনুপ্রবেশকারীকে ভারতে অবৈধভাবে প্রবেশের সময় আটক করে স্থানীয় পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে।

২০১৬ সালে আটক করা হয়েছিল ১৫৮৭ জনকে। ২০১৭ সালে এ সংখ্যা কমে দাঁড়ায় ৮৭১ জনে।