VOOC ফ্ল্যাশ চার্জের রয়েছে ৯০ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর আস্থা

ব্র্যান্ডঃ
VOOC ফ্ল্যাশ চার্জের রয়েছে সবচেয়ে বেশি প্যাটেন্ট যা ৯০ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর আস্থার অপর নাম।

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের চাহিদার তালিকায় মানসম্পন্ন ব্যাটারির গুরুত্ব উপলব্ধি করে স্মার্টফোন ব্র্যান্ডগুলো এ বিষয়ে গবেষণায় প্রচুর অর্থ ব্যয় করছে। বিশ্বমানের স্মার্টফোন কোম্পানি অপোও এই দৌড়ে পিছিয়ে নেই। স্মার্টফোনের ব্যাটারি সহ বিভিন্ন দিক নিয়ে গবেষণা এবং উন্নয়নে তারা সব সময়ই বিনিয়োগ করে।

VOOC অপোর স্বতন্ত্র ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তির নাম যা ইতিমধ্যে অনেক অপো ফোনে পাওয়া যাচ্ছে। এই অনন্য প্রযুক্তি প্রচলিত ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি থেকে উন্নত হওয়ায় এটি একই সাথে দ্রুত এবং নিরাপদ। VOOC ফ্ল্যাশ চার্জ রেকর্ড সময়ে আপনার ফোনের ব্যাটারিকে চার্জ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ যাতে আপনার ডিভাইসটিকে দীর্ঘ সময় ধরে প্লাগ-ইন করে রাখতে না হয়। VOOC ফ্ল্যাশ চার্জের সার্কিট প্রযুক্তি, চার্জিং অ্যাডাপ্টারের তাপমাত্রা কমিয়ে আনে এবং অ্যাডাপ্টার ও ফোনের মধ্যে একটি ইন্টারফেস তৈরি করে যা চার্জের গতি এবং নিরাপত্তা দুটোই বাড়িয়ে দেয়। এই চার্জিং প্রযুক্তির মাত্র ৫ মিনিট চার্জ আপনাকে ২ ঘন্টা পর্যন্ত কথা বলার স্বাধীনতা দিতে পারে। এটি প্রচলিত 5V/1A চার্জিং প্রযুক্তির চেয়ে চার গুণ দ্রুত চার্জ করে। এছাড়াও অ্যাডাপ্টার থেকে পোর্ট পর্যন্ত এবং ফোনের অভ্যন্তরে পাঁচ স্তরের সুরক্ষা ব্যবস্থা নিরাপদ চার্জিং প্রক্রিয়া নিশ্চিত করে।

VOOC নতুন কোন প্রযুক্তি নয়। অপো ২০১৪ সালে তাদের এই নিজস্ব কম ভোল্টেজ দ্রুত চার্জিং উন্নত প্রযুক্তি ডেভলপ করে। প্রযুক্তিটি ৯০ মিলিয়ন ব্যবহারকারীর আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে যার ৫০০ টির-ও বেশি পেটেন্ট রয়েছে। অপো সর্বদা প্রযুক্তি জগতে নিত্যনতুন বিস্ময় নিয়ে হাজির হচ্ছে। VOOC চার্জার-ও এমন এক প্রযুক্তি যা গত কয়েক বছর ধরে নিরাপদ ও দ্রুত চার্জিং প্রযুক্তির অপর নাম। তাই ফাস্ট চার্জার বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে VOOC আপনার পছন্দের তালিকায় শীর্ষেই স্থান পেতে পারে।

-এসএম