রন্ধন শিল্পী-সেফ যৌথ মিলনমেলা অনুষ্ঠিত

লাইফস্টাইলঃ  এই প্রথমবারের বাংলাদেশে রন্ধন শিল্পী ও শেফদের যৌথ উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছিল এক বিশাল মিলনমেলা।

মিলমেলায় উপস্থিত দেশের জনপ্রিয় তারকা রন্ধনশিল্পী, রন্ধন বিশেষজ্ঞ ও পাঁচ তারকা হোটেল, রেস্টুরেন্ট মালিক ও ম্যানেজার থেকে শুরু করে ডাক্তার, নিউট্রিশনিষ্ট সহ এবং শেফ কোর্ট পরিহিত প্রায় ৩০০ শেফ ও রন্ধন শিল্পী।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যাক্তি, মোটিভেশনাল বক্তা ইউটিউভার, সাংবাদিক সহ অন্যান্যরা।

রন্ধনমেলার উদ্দেশ্য হচ্ছে কিভাবে বাংলাদেশের খাবার সারাবিশ্বের কাছে আরও গতিশীল ও পরিচিত করা যায় এ বিষয়ে রন্ধন শিল্পী ও সেফ সম্মিলিতভাবে নতুন উদ্যোগে যাত্রা শুরু করা যায় সেই লক্ষ্যে একসাথে কাজ করা।

মিলনমেলায় উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন রন্ধন শিল্পী মি. টনি আলাল করিম খান(টনি খান), অনেক সুখ দুঃখের কথা শেয়ার করলেন। লবি রহমান, নাজমা হুদা, ইসরাত জাহান, সেফ মেহেদি হাসান, আফরোজ নাজনীন সুমি, শেফ মামুন চৌধুরী, মিতা ফেরদৌসী,খাদিজা বেগম,লতিফা আক্তার, আপনঘরের অভিজ্ঞ মনিরা সুলতানা তার জীবন থেকে বিচিত্র অভিজ্ঞতার কথা জানালেন।

মিলন মেলায় উপস্থিত ছিলেন ’দ্যা অলিভ’ এর প্রেসিডেন্ট ও সিইও মারুফ ইউ ইসলাম। মি. মারুফ জানালেন, ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি বিষয়টা অনেক আগে থেকৈই পৃথিবীতে চালু হয়েছে। কিন্ত আমাদের দেশেঅনেক পরে শুরু করেছি এ কারনে অনেককিছূই আজানা রয়ে গেছে।

মি. মারুফ জানালেন, আমাদের দেশে সেফ তৈরী করার একটা বিশাল সম্ভাবনা রয়ে গেছে। আমেরিকা, অষ্ট্রেলিয়ায় সেফদের সর্বোচ্চ বেতনে সম্মান করা হয়। এই দুই দেশে পেশাগতভাবে সেফদের স্থায়ী বাসিন্দা করে নেয়। এ ধরনের অনেক তথ্য জানান। ৫ লক্ষ দক্ষ সেফ বাংলাদেশে দরকার। আমাদের দেশে ১৮ টি ফাইভষ্টার হোটেল স্থাপন হতে যাচ্ছে অতি শীঘ্রই। আমরা যদি ওইভাবে তৈরী হতে পারি তাহলে এ সব কর্মক্ষেত্রে বিদেশীরা নিয়োগ পাবেন না।

অনুষ্ঠানটি সকাল ৮ টায় রাজধানীর বেরাইদ এলাকার প্রজাপতি গার্ডেন রির্সোটে অনিষ্ঠত হয়।

-এসএম