নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন যাঁরা

৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করার জন্য আবেদন করেছে ১৬টি দেশ ও সংস্থা। নির্বাচনে এই দেশ ও সংস্থাগুলো নিয়োগ করবে মোট ১৭৮ জন পর্যবেক্ষক।

এর মধ্যে বিদেশি পর্যবেক্ষক থাকবেন ৯৭ ও বিদেশিদের প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশি থাকবেন ৮১ জন।

ইসি সূত্র জানায়, নির্বাচনে এবার আন্তর্জাতিক এনজিও নেটওয়ার্ক-এনফ্রেল এর ৩২ জন বিদেশি পর্যবেক্ষক থাকবে। ফ্রান্সের থাকবে চারজন পর্যবেক্ষক, এর মধ্যে দুইজন বিদেশি আর দুইজন বাংলাদেশি।

জাপানের থাকবে নয়জন পর্যবেক্ষক, এর মধ্যে চারজন বিদেশি আর পাঁচজন বাংলাদেশি। স্পেনের একজন বিদেশি পর্যবেক্ষক থাকবে। ডেনমার্কের তিনজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে একজন বিদেশি ও দুইজন বাংলাদেশি।

নরওয়ের দুইজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে একজন বিদেশি ও একজন বাংলাদেশি। এছাড়াও আইএফইএসের চারজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে একজন বিদেশি ও তিনজন বাংলাদেশি।

নির্বাচনে এবার ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের (ডিআই) ২৪ জন পর্যবেক্ষক থাকবেন, এর মধ্যে দুইজন বিদেশি ও ২৪ জন বাংলাদেশি পর্যবেক্ষক থাকবেন। ডিপেন্ড্র কেনডেল ইনিশিয়েটিভ তিনজন বিদেশি পর্যবেক্ষক দেবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ৬৫ জন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে ৩২ জন বিদেশি ও ৩৩ জন বাংলাদেশি। জার্মানির আটজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে ছয়জন বিদেশি ও দুইজন বাংলাদেশি।

এছাড়াও নেদারল্যান্ডের চারজন বিদেশি পর্যবেক্ষ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের থাকবে দুইজন বিদেশি পর্যবেক্ষক।

নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আইআরআইয়ের চারজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে দুইজন বিদেশি ও দুইজন বাংলাদেশি।

সুইজারল্যান্ডের ছয়জন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে দুইজন বিদেশি ও চারজন বাংলাদেশি। এবং এশিয়ান ফাউন্ডেশনের সাতজন পর্যবেক্ষক থাকবে, এর মধ্যে দুইজন বিদেশি ও পাঁচজন বাংলাদেশি।

তবে নির্বাচন কমিশন এই তালিকা করলেও একাদশ জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে বাংলাদেশ সরকার সময়মতো ভিসা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় সফর বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক দল।

এজন্য আনুষ্ঠানিক প্রেস বিবৃতিতে হতাশাও প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

২১ ডিসেম্বর প্রকাশিত ওই বিবৃতিতে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের উপ-মুখপাত্র রবার্ট পালাদিনো বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় গণতান্ত্রিক ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে মার্কিন সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত ‘এশিয়ান নেটওয়ার্ক ফর ফ্রি ইলেকশনস (এনফ্রেল)’-এর একটি দলের বাংলাদেশের নির্বাচন পর্যবেক্ষণে আসার কথা থাকলেও ভিসা জটিলতায় সেই সফর বাতিল করা হয়েছে।

‘৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের বিশ্বাসযোগ্য পর্যবেক্ষণ মিশন পরিচালনার উদ্দেশ্যে নির্বাচনের আগে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে আনফ্রেলের অধিকাংশ আন্তর্জাতিক নির্বাচন পর্যবেক্ষককে স্বীকৃতিপত্র ও ভিসা ইস্যু করতে বাংলাদেশ সরকারের ব্যর্থতায় আমরা হতাশ,’ বলেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email