পড়াশুনায় বিরক্তি দূর করতে ১০ টিপস্

মোঃ জাকিরুল হুদাঃ

পড়াশুনা করতে করতে মাঝে মাঝে মনে বিরক্তি ভাব আসে । কখন মনে হয় অন্য কিছু করা উচিৎ । আর এটা স্বাভাবিক বিষয় যে কোন কাজ যদি আমরা অনেক সময় ধরে করি তবে বিরক্তি ভাব আসতেই পারে ।।কিছু ছাত্র ব্রেক টাইম এ এমন কিছু কাজ করে যা তাদের পড়ার প্রতি অনাগ্রহ তৈরি করে ।  ব্রেক টাইম এমন হতে হবে যা আপনার পড়াশুনার ক্ষতি না করে , আপনার ব্রেন কে রিফ্রেশ করে দিবে আপনার পরবর্তী পড়াশুনার জন্য ।

আজ আপনাদের ১০  টি এমন বিষয় বলব যা আপনাদের পড়াশুনার প্রতি আগ্রহ ধরে রাখতে সাহায্য করবে । আমরা এই ১০  টি কাজ কে ৩ ভাগে ভাগ করতে পারি । ১ম ১০-২০ মিনিট এর ব্রেক এর জন্য । ২য় ৩০-৪৫ মিনিট এর ব্রেক । ৩য়  ১-২  ঘন্টার ব্রেক নিতে চান । মনে রাখবেন এই ব্রেক গুলো সবসময় পড়াশুনা বিষয়ক হতে হবে ।

১০-২০ মিনিটের ব্রেক টাইম এ যা করতে পারেন –

১। আপনার ডেস্ক পরিষ্কার করুন । আপনার পড়ার টেবিল টা একটু গুছিয়ে নিতে পারেন যা ১০-২০ মিনিটে সম্ভব । মনে রাখুন পরিষ্কার পরিছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। 
২। আজকে রাতে বা আগামীকাল সম্পন্ন করতে চান এমন গুরুত্তপূর্ণ ৩ -৫ টি জিনিস এর তালিকা তৈরি করুন । আর একটু ভেবে দেখুন যে আপনি তা কমপ্লিট করতে পারবেন কি পারবেন না । এতে লাভ এটা হবে যে আপনি পড়াশুনা করছেন না কিন্তু পড়াশুনা রিলেটেড এমন কিছু করছেন যা আপনাকে আপনার পরবর্তী পড়ার কাজে সাহায্য করবে । 
৩। আপনার সর্বশেষ নোট পর্যালোচনা করুন । আপনি ২-৩ ঘণ্টায় যা পড়েছেন তা রিভিউ করুণ  । দেখুন আপনি তা বুঝতে পারছেন কিনা । আপনার কাছে বিষয়টা পরিষ্কার কিনা বা কোন নতুন কিছু যোগ করতে চান কিনা । আপনার পড়ার বিষয়ের উপর আপনি অন্য কোন উদাহারন ভাবতে পারছেন সেটা খেয়াল করুণ । আপনি যখন এই ভাবে চিন্তা করবেন তখন ব্রেন অট্মেটিক পড়াশুনার প্রতি আপনার মনোযোগ ধরে রাখবে । 
৪। সম্ভাব্য প্রশ্নগুলির ধারণা পেতে কোনও অতীতের পরীক্ষার প্রশ্ন  ডাউনলোড করতে পারেন কিনা তা দেখুন । অথবা কারো সাথে কথা বলুন বা আপনার ভালো কোন বন্ধু কে কল করুণ , কারো সাথে আলোচনা করুণ । চা বা কফি পান করতে করতে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করুণ। এতে করে পড়াশুনার প্রতি ব্রেন আমাদের ইন্টারেস্ট বজায় রাখবে । 
৫। একমাস পরের কথা চিন্তা করুণ , ভাবুন একমাস পরে কোন প্রোগ্রাম আছে কিনা- আপনার কোন ডক্টর দেখানোর এপন্টমেন্ট আছে কিনা বা কোন বিয়ের অনুষ্ঠান  বা কোন ইভেন্ট যা আপনার পড়াশুনার ক্ষতি করবে । তাহলে প্রথম থেকেই ভেবে রাখুন যে আপনি আগামীতে কিভাবে আপনার পড়াশুনা কমপ্লিট করে রাখবেন । আপনার যে সময় টা নষ্ট হবে তা কিভাবে ম্যানেজ করবেন । 
৩০-৪৫ মিনিটের ব্রেক টাইম এ যা করতে পারেন- 
৬। আপনি সকাল থেকে যা পড়েছেন তা লেখার চেষ্টা করুণ। আপনি যত বেশি লিখবেন পড়া আপনার মেমোরিতে তত বেশি স্থায়ী হবে । প্রয়োজন হলে ডায়াগ্রাম তৈরি করুণ ।
৭। নোট অ্যারেঞ্জ করুণ। যা আপনি ৩০-৪৫ মিনিটে খুব সহজেই করতে পারবেন । 
৮। যে কোন একটা টপিক নিন । ঐ টপিক এর নোট নিয়ে দেখতে থাকুন। এর মধ্যে কি কি জিনিস আছে বা আপনি কি কি জিনিস শিখেছেন তার একটা স্যামারি  তৈরি করুণ। 
১-২ ঘণ্টার ব্রেক টাইম এর ব্যবহার- 
৯। নোট বানানো শুরু করে দিন । যত ভাল নোট বানাতে পারবেন পরীক্ষায় তত ভাল করতে পারবেন । 
১০। প্লান করুণ । বিষয়টা এমন না যে প্লান করলেই সেটা সাকসেস হবে। কিন্তু প্লান করলে একটা ডিরেকশন তো পাওয়া যাবে । আপনি নিজে শিওর হচ্ছেন যে আপনাকে কোথা থেকে কোথায় যেতে হবে । এটা হচ্ছে জি পি এস এর মতো আপনি দেখতে পাচ্ছেন যে কোথা থেকে কোথায় যেতে হবে । 
Print Friendly, PDF & Email