‘আর্সেনিক আর্সেনিককোসিস মোকাবেলায় বাংলাদেশ’ এর মোড়ক উন্মোচন

শিল্প ও সাহিত্যঃ

আর্সেনিক এক ধরনের ধাতু। এই ধাতু ভূ-গর্ভে অন্যান্য ধাতুর সঙ্গে সহাবস্থান করে এবং অক্সাইড ও আর্সেনেট রুপে যৌগ হিসেবে থাকে। অনেক পদার্থের সঙ্গে আসের্নিকরে সবাবস্থান হলেও রিয়েলগার, অর্পিমেন্ট এবং আর্সেনোপারাইট নামক এ তিনটি খনিজ পদার্থে আর্সেনিক অধিক মাত্রায় বিদ্যমান থাকে যা বিভিন্নরুপে রুপান্তরিত হয়ে পানিতে মিশ্রিত হয়।

পুথিবীর এমন কিছূ নেই যেখানে আর্সেনিক পাওয়া যাবে না। তবে তামাক দ্রব্যের মধ্যে আর্সেনিকের মাত্রা বেশি থাকে। তবে আর্সেনিক মিশ্রিত পানি সাধারণ চোখে দেখে বা গন্ধ অনুভব করে বোঝার উপায় সাধারণ মানুষের নেই। তাই মানুষের আজান্তেই মানব দেহে মারাত্নক ক্ষতিকর এই ঘাতক বিষ প্রবেশ করছে। আর এ কারনেই ক্ষতিকর এই বিষ নিয়ে মানবজাতি আতংকিত।

বেশিরভাগ মানুষই জানেন না আর্সেনিক থেকে কিভাবে মুক্তি মিলবে। কিভাবে পানির আর্সেনিক থেকে মিলবে সুপেয় নিরাপদ পানি। কি ই বা উপায় এর থেকে পরিত্রাণের। এ বিষয়ে জানা দিতে ড. ওয়াজেদ মিয়ার ঘনিষ্ঠ সহযোগী প্রয়োগ রসায়নবিদ মো: হাবিবুর রহমান মিঞার পাঁচ বছরের গবেষণার ফল এই ’পরিবেশ দূষণে আর্সেনিক আর্সেনিককোসিস মোকাবেলায় বাংলাদেশ’ এর রচনা।

বইটিতে আরও লিখেছেন ড. এম. এমদাদুল হক, অতরিক্ত সচিব, প্রকৌশলী মোহাম্মদ গোলাম মোক্তাদির, আলাউদ্দিন মিঞা। বইটিতে ৭টি অধ্যায়ে রয়েছে বিভিন্ন রচনা।

আজ বিশিষ্ট পরমানু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ আলী মিয়ার শুভ জন্মদিনে তাকেঁ উৎসর্গ করে ’পরিবেশ দূষণে আর্সেনিক আর্সেনিককোসিস মোকাবেলায় বাংলাদেশ’ এর মোড়ক উন্মোচন করা হল।

মোড়ক উন্মোচনে বিশেস অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সোনালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আশরাফুল মকবুল, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইসমাইল. মো: হাবিবুর রহামান মিয়া,(লেখক), ইণ্জিনিয়ার মো. মনিরুজ্জামান, (অব.) প্রধান প্রকৌশলী গনস্বাস্থ্য বিভাগ আরও উপস্থিত ছিলেন লেখক কণ্যা এ্যাডভোকেট আয়শা ইমাম।     

সকালে রাজধানীর পরমাণু শক্তি কেন্দ্রের অডিটোরিয়াম আনুষ্ঠানিকভাবে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামিম হায়দাচ পাটোয়ারি।

বইটি প্রকাশনা ও মুদ্রন করেছে আনিশা এন্টারপ্রাইজ, বইয়ের মূল্য-৫০০ (পাঁচ শত টাকা মাত্র)। আর্সেণিক সমস্যা মোকাবেলায় তার এই বইটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদি লেখক ও অতিথিরা।

-এসএম

Print Friendly, PDF & Email