পপুলার হাসপাতালকে ৪ লক্ষাধিক টাকা জরিমানা

অনলাইনঃ
রাজধানীর ধানমন্ডির পপুলার হাসপাতালে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ পাওয়া গেছে। একই সঙ্গে ক্যানটিনে রোগীদের খাবারে পাওয়া গেছে তেলাপোকা।

এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটিকে ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর।

আজ ২ মার্চ, শনিবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল সাড়ে চারটা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটিতে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়।

অভিযান শেষে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল বলেন, ‘অপরিষ্কার-অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে পপুলার হাসপাতালের ক্যানটিনে খাবার রান্না হতো। সেখানে শত শত তেলাপোকা ঘুরে বেড়াচ্ছিল।

আবর্জনার ভেতরেই তারা খাবার রান্নার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। রোগীদের জন্য রাখা কেকের মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছিল তেলাপোকা। এভাবে তারা অসুস্থ রোগীদের জন্য খাবার তৈরি করত। নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার তৈরির দায়ে প্রতিষ্ঠানটির ক্যান্টিনকে তিন লাখ টাকা এবং স্ন্যাকস কর্নারকে ২০ হাজার জরিমানা করা হয়েছে।

‘এছাড়া তাদের মেডিসিন কর্নারে মেয়াদউত্তীর্ণ ওষুধ রেখেছিল এবং বেশ কিছু ওষুধ বিদেশি ছিল যেগুলোর গায়ে কোনও মূল্য লেখা ছিল না। তার মানে সেগুলো অবৈধভাবে দেশের বাইরে থেকে আনা হয়েছে। এসব অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির তিনটি মেডিসিন কর্নারকে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে,’ বলেন আব্দুল জব্বার।

তিনি জানান, প্রতিষ্ঠানটি রোগীদের খাবার ফ্রি বললেও সেখানে পে-ফার্স্ট (টাকা আগে পরিশোধ) লেখা ছিল। এর কারণ তাদের কাছে জানতে চাওয়া হলেও সদুত্তর পাওয়া যায়নি।

এছাড়া অভিযানে ধানমন্ডির ডমিনোজ পিৎজা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ খাবার বিক্রির দায়ে ৫০ হাজার টাকা, ইয়াম চা ডিস্ট্রিক্টকে ৫০ হাজার, ওয়েল ফার্মাকে ৫০ হাজার এবং বেঙ্গলি রেস্তোরাঁকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক (উপসচিব) মনজুর মোহাম্মাদ শাহরিয়ারের তত্ত্বাবধানে অভিযান পরিচালনা করেন ঢাকা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডল। সঙ্গে ছিলেন ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ফাহমিনা আক্তার ও জান্নাতুল ফেরদাউস। অভিযানে সহযোগিতা করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন।

-পিটি/কে