নারীদের বিনা খরচে জাপানে চাকুরীর সুযোগ

কর্মসংস্থানঃ
নারীদের কর্মসংস্থানের সুযোগ হিসেবে নার্স হিসেবে জাপানে চাকুরীর সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। পেশায় জাপান যেতে আগ্রহী নারী প্রার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করতে যাচ্ছে সরকার।

কেরানীগঞ্জ কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (টিটিসি) থেকে এই কোর্স পরিচালিত হবে। এটি জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর অধীনস্ত একটি উদ্যোগ। আগামী ১ এপ্রিল মাস থেকে ৪ মাস মেয়াদি কোর্সে ভর্তির জন্য নারীদের কাছ থেকে দরখাস্ত আহ্বান করা হচ্ছে।

এই কাজের সহযোগী হিসেবে কাজ করছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। এক ব্যাচে ২৫-৩০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রতি চার মাস পর এটি অনুষ্ঠিত হয়। জাপানি ভাষা শিক্ষা পরীক্ষায় অবশ্যই কৃতকার্য হত হবে।

এ পেশায় প্রথমে দুই বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হতে হবে। চুক্তির মেয়াদ নবায়ন করা যাবে।জাপানে সফলভাবে পাঁচ বছর থাকার পর পরিবার নিয়ে জাপানে যেতে পারবেন। এ ছাড়া স্থায়ী থাকার বা নাগরিক হওয়ার জন্যও আবেদন করা যাবে।

প্রথম ব্যাচে ৭০ জনকে পাঠানো হবে। পরবর্তীতে ক্রমান্বয়ে পাঠানো হবে।

প্রার্থীর যোগ্যতা ও শর্ত সমূহঃ
বয়স ১ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে ২০ থেকে ২৯ বছর হতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চমাধ্যমিক বা এইচএসসি। স্মার্ট ও উদ্যমী প্রার্থীদের ক্ষেত্রে এসএসসি পর্যন্ত শিথিলযোগ্য। জাপানি ভাষা জানা প্রার্থীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। জাপানি ভাষা শেখার মানসিক প্রস্তুতি থাকতে হবে। প্রার্থীদের বিনয়ী, স্মার্ট, ধৈর্যশীল ও নতুন বিষয় শিখতে আগ্রহী হতে হবে। শিশু, বয়স্ক ও শয্যাশায়ী বৃদ্ধদের সেবাদানের মানসিকতাসম্পন্ন এবং সর্বোপরি মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন হতে হবে। বিদেশে কাজ করতে আগ্রহী হতে হবে। শারীরিক যোগ্যতা উচ্চতা কমপক্ষে ৪ ফুট ৬ ইঞ্চি এবং ওজন সর্বনিম্ন ৪০ কেজি। উল্লিখিত শর্ত সাপে‌ক্ষে আগ্রহী প্রার্থীদের জীবনবৃত্তান্তের স্ক্যান কপি কেরানীগঞ্জ টিটিসির [email protected]—এই মেইলে ২৭ মার্চের মধ্যে পাঠাতে হবে। ই-মেইলে সাবজেক্ট লাইনে Application for admission in Caregiver Course’ কথাটি লিখতে হবে। আবেদনের সঙ্গে অন্য কোনো কাগজপত্র সংযুক্ত করার দরকার নেই। আবেদনপত্রগুলো যাচাই-বাছাই করে প্রাথমিকভাবে যোগ্য প্রার্থীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হবে।

সাক্ষাৎকারের সময় যেসব কাগজ আনতে হবে
১. অনলাইনে আবেদনপত্রের কপি।
২. এইচএসসি বা এসএসসির মূল সনদ ও এক সেট সত্যায়িত ফটোকপি।
৩. সদ্য তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
৪. জাপানি ভাষায় দক্ষতাসংক্রান্ত মূল সনদসহ এক সেট ফটোকপি (যদি থাকে)।
৫. মূল জাতীয় পরিচয়পত্রসহ অথবা জন্মসনদসহ এক সেট ফটোকপি।

প্রশিক্ষণার্থীদের থাকার ব্যবস্থা টিটিসিতে করা হবে। তবে খাওয়া বাবদ খরচ নিজেকে বহন করতে হবে।·আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার কেরানীগঞ্জ টিটিসিতে ২৮ নভেম্বর ২০১৯ সকাল ১০টা থেকে গ্রহণ করা হবে এবং বেলা তিন ঘটিকায় ফলাফল প্রকাশ করা হবে। আবেদনকারীদের কাছ থেকে ভর্তি ফি বাবদ অফেরতযোগ্য এককালীন পাঁচ হাজার টাকা নেওয়া হবে।

ভর্তির তারিখ: ৩১ মার্চ থেকে ২ এপ্রিল পর্যন্ত।
যোগাযোগ: মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন: ০১৭২৭৬৫৫১৫৩, অধ্যক্ষ: ০১৭১৬৩৭৩৩৯৪।

Print Friendly, PDF & Email