ফিরেছে টাইগাররা, লোমহর্ষক স্মৃতি নিয়ে

স্পোটর্সঃ

আরেকটু হলেই বড় কোনো বিপদ ছুঁয়ে যেতো পুরো দলের উপর দিয়ে। কিন্তু হয়নি, এক অপরিচিত মহিলার কল্যাণে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়ে পুরো দল। বাংলাদেশ দল সুরক্ষিত থাকলেও ঝরে গেছে ৪৯ টি তাজা প্রাণ। ব্রায়ান টারান্ট নামক আততায়ী বন্ধুকধারীর নির্ভুল নিশানা শুধু প্রাণহারানো মানুষগুলোর শরীরই ভেদ করেনি, নাড়া দিয়ে গেছে বিশ্ব বিবেককেই।

খুব কাছাকাছি এমন লোমহর্ষক ঘটনা দেখে স্বভাবতই মুছড়ে গেছে পুরো বাংলাদেশ দল। খেলার মন মানসিকতা হারিয়েছে সবাই। আন-অফিসিয়ালি তামিম-মুশফিকরা জানিয়েছিল তারা আর খেলতে চান না।

এমন অবস্থায় দুই দেশের মধ্যস্থতায় বাতিল করা হয়েছে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। শনিবার ভোরে ক্রাইস্টচার্চে শুরু হওয়ার কথা ছিল ম্যাচটি। কিন্তু অনাকাংখিত ঘটনার জন্য তা বাতিল হওয়ায় আজ দেশে ফিরলো ক্রিকেটাররা সহ ১৯ সদস্যের একটি দল। ১৯ সদস্যের এ দলে কয়েকজন কোচ ও কোচিং স্টাফ ছিলেন না। তারা নিজ নিজ দেশে ফিরে যাবেন।

হামলার পর শনিবার শেষরাতে ক্রাইস্টচার্চ বিমানবন্দরে যায় বাংলাদেশ দল। সেখান থেকে ভোর ৫ টায় সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে তারা দেশের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। আর ঢাকায় এসে পৌঁছায় রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার নিউজিল্যান্ড স্থানীয় সময় বেলা ১টা ৪০ মিনিটে মসজিদে আল নুরসহ আরো একটি মসজিদে বন্ধুকধারীদের গুলিতে নিহত হয় ৪৯ জন। এছাড়া আহত হয়েছেন কমপক্ষে আরো ৪৮ জন। সেদিন মসজিদে আল নুরেই নামাজ আদায়ের কথা ছিল বাংলাদেশ দলের। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনের জন্য দেরিতে যাওয়া এবং অজ্ঞাত মহিলার মুখ থেকে গুলাগুলির কথা শুনে বিপদ থেকে বেঁচে যায় টাইগাররা।

Print Friendly, PDF & Email