আমাকে এসিড মারতে চেয়েছিলেন আজম খানঃ জয়া

বিনোদনঃ
বলিউড অভিনেত্রী জয়া প্রদা অভিযোগ অভিযোগ করে বলেন, সহকর্মী আজম খান তাকে এসিড মারার পরিকল্পনা করেছিলেন। সেই কারণেই তিনি রামপুর ছাড়তে বাধ্য হয়েছিলেন, দাবি প্রাক্তন সমাজবাদী পার্টি সংসদ সদস্য এ বারের লোকসভা ভোটে রামপুরের বিজেপি প্রার্থী জয়াপ্রদার। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

২০০৪ সালে সমাজবাদী পার্টির টিকিটে উত্তর প্রদেশের রামপুর কেন্দ্র থেকে প্রথম সংসদ সদস্য হন জয়াপ্রদা। পরের বার ২০০৯ সালেও মুলায়মের দলের হয়েই রামপুর কেন্দ্র থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। কিন্তু পরের বছর ২০১০ সালে দলবিরোধী কাজের অভিযোগ তুলে তাকে বহিষ্কার করে সমাজবাদী পার্টি (এসপি)। জয়াপ্রদা ছিলেন অমর সিংহ ঘনিষ্ঠ। অমর সিংহ ধীরে ধীরে দলে কোণঠাসা হয়ে পড়তেই অভিনেত্রী সংসদ সদস্যকে বরখাস্ত করে দল। রাজনৈতিক শিবিরের মতে, এই বহিষ্কারের ক্ষেত্রেও আজম খান গোষ্ঠী ছিল অন্যতম।

মাঝে ২০১৪ সালে অজিত সিংহর রাষ্ট্রীয় লোক দল (আরএলডি)-র টিকিটে বিজনৌর কেন্দ্র থেকে দাঁড়ালেও হেরে যান জয়াপ্রদা। এর পর সম্প্রতি বিজেপিতে যোগ দিয়ে এবার লোকসভা ভোটে ফের রামপুরেই প্রার্থী হয়েছেন জয়াপ্রদা। বুধবারই ছিল রামপুরে একটি নির্বাচনী প্রচার সভা। সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, ‘আমি রামপুর ছাড়তে চাইনি। কিন্তু সেই সময় এমন পরিস্থিতি ছিল যে, কাউকে কাজই করতে দিত না। কেউ ওদের (আজম খান গোষ্ঠী) বিরুদ্ধে কথা বললেই জেলে পুরে দিত। আমি রামপুর ছেড়েছি, কারণ ওই দিন আমার উপর অ্যাসিড আক্রমণের পরিকল্পনা করেছিল। আমার উপর হামলা হয়েছিল।’ তবে ওই দিন বলতে ঠিক কবেকার কথা বলতে চেয়েছেন জয়াপ্রদা, তা স্পষ্ট নয়। কিন্তু ওই কথা বলার পরই আর আবেগ ধরে রাখতে পারেননি জয়া। বক্তৃতা থামিয়ে দিয়ে মাথা নিচু করে বেশ কিছুক্ষণ নীরব ছিলেন তিনি। খানিকক্ষণ পর কিছুটা সামলে নিয়ে ফের বক্তৃতা শুরু করেন রামপুরের প্রাক্তন সংসদ সদস্য।