খুনি ও অর্থপাচারকারীরা যেখানেই থাকুক ক্ষমা নেইঃ প্রধানমন্ত্রী

অনলাইনঃ
আমরা বঙ্গবন্ধুর খুনি ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছি। খুনি ও অর্থপাচারকারীরা যেখানেই লুকিয়ে থাকুক, যত টাকাই খরচ করুক, তাদের কোনও ক্ষমা নেই এবং জাতি তাদের ক্ষমা করবে না। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার লন্ডনে স্থানীয় সময় বিকেলে তাজ হোটেলে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুক্তরাজ্য শাখা ও দলের সহযোগী সংগঠনগুলো এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, আদালত খুনি ও অর্থপাচারকারীদের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। আমরা এই রায় কার্যকরের পদক্ষেপ নেবো। তারা যত স্লোগানই দিক, যত তিরস্কারই করুক, তাদের অবশ্যই শাস্তি হবে।

সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপি’র অপপ্রচারের উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যাদের জন্মের কোনও বৈধতা নেই তারাই সবকিছুতে অবৈধ খুঁজে বেড়ায়। মিথ্যা নিয়ে কারবার করাই বিএনপির ব্যবসা এবং তারা এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করে এবং বিদেশে অর্থ পাচার করে বিপুল বিত্ত-বৈভবের মালিক বনে গেছে।

লন্ডনে থাকা নেতাকর্মীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনাদের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে যাতে মানুষের ভাগ্য নিয়ে আর কেউ ছিনিমিনি খেলতে না পারে এবং দেশের ইতিহাসকে বিকৃত করতে না পারে।

দীর্ঘ প্রতীক্ষিত পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার নিজস্ব অর্থ দিয়েই পদ্মা সেতু নির্মাণ করছে এবং ইতোমধ্যে সাড়ে ৬ কিলোমিটার সেতুর প্রায় ২ কিলোমিটার দৃশ্যমান হয়েছে।

এ সেতু নির্মাণ নিয়ে সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল কিন্তু আমরা সেই অভিযোগ মেনে নেইনি বরং আমরা এর প্রতিবাদ করেছি কারণ সেই সাহস আমাদের ছিল। আমি কোনও মিথ্যা অভিযোগের দায় নিতে পারি না এবং আমি জানি মানুষ সত্য ভালোবাসে এবং মর্যাদা দেয়, আমি এও জানি সত্যের পথ সবসময়ই কঠিন এবং সে পথেই আমি এ পর্যন্ত এসেছি।

এসময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরিফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমানসহ অসংখ্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডনে ১০-দিনের সরকারি সফর শেষে শনিবার দেশে ফিরবেন বলে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী ১ মে লন্ডন সফরে যান।

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter