আর্ন্তজাতিক তরুণ নেতৃত্বে বিজয়ী এস এম সৈকত

অনলাইনঃ
জনস হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্কুল অফ পাবলিক হেলথ এর বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ইনস্টিটিউট ফর পপুলেশন এন্ড রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ পরিবার পরিকল্পনা ও জনস্বাস্থ্য বিষয়ে বিশেষ অবদান রাখায় ২০১৯ সালের অনুর্দ্ধ ৪০ তরুণ নেতৃত্ব বিজয়ী তালিকা প্রকাশ করেছে।

এই পুরস্কারটি বিশ্বব্যাপী পরিবার পরিকল্পনার পরবর্তী প্রজন্মের নেতাদের সাফল্যকে স্বীকৃতি দেয় এবং তুলে ধরে; এটি বেয়ার এর সহায়তায় গেটস ইনস্টিটিউট দ্বারা পরিচালিত। কয়েক বছরের চলমান প্রকল্পটি তিন বছরের মধ্যে ১২০ জন পরিবার পরিকল্পনা চ্যাম্পিয়ন বেছে নেয়।

এ বছরের ৪০ জন বিজয়ীদের মধ্যে রয়েছেন অ্যাডভোকেট, গবেষক, পরিষেবা সরবরাহকারী, এপিডেমিওলজিস্ট, মেডিকেল ডাক্তার, প্রোগ্রাম অফিসার, যোগাযোগ/ মিডিয়া পেশাদার এবং এনজিও ও অলাভজনক প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা। তারা পরিবার পরিকল্পনা ও প্রজনন স্বাস্থ্যকে এগিয়ে নিতে বিশ্বজুড়ে ক্লিনিক এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে, অফিসে এবং সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে অনন্য ভূমিকা রেখে চলেছেন।

২০১৯ এর বিজয়ীদের তালিকায় অন্যতম যুব সংগঠণ সিরাক-বাংলাদেশ এর নির্বাহী পরিচালক এস এম সৈকত। সিরাক-বাংলাদেশ পরিবার পরিকল্পনা, এবং তরুণদের স্বাস্থ্য অধিকার, এবং লিঙ্গ ভিত্তিক সহিংসতা প্রতিরোধ সম্পর্কিত কর্মসূচী পরিচালনা করছে সারাদেশের সবগুলো বিভাগে। সৈকত একজন তরুণ নেতা হিসাবে কাজ করেছেন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক উইমেন ডেলিভার, রিপ্রোডাক্টিভ হেলথ সাপ্লাইজ কোয়ালিশনের যুব ককাসের চেয়ারম্যান, পিএমএনসিএইচ পার্টনার্স ফোরামের গ্লোবাল অর্গানাইজিং কমিটির সদস্য এবং ২০১৬ সালে পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কিত বাংলাদেশের জাতীয় যুব সম্মেলন শুরু করেছেন এবং অব্যাহত রেখেছেন ২০১৭, ২০১৮ এবং ২০১৯ এ যা বিশ্বের প্রথম এ ধরনের কোন আয়োজন।

গেটস ইনস্টিটিউটের পরিচালক এবং প্রতিযোগিতার জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান হোসে “ওইং” দ্বিতীয় রিমন বলেন, “বিজয়ীদের এই চূড়ান্ত দলটিও প্রথমটির মতোই উল্লেখযোগ্য। “এই তরুণ নেতারা বিশ্বব্যাপী স্থায়ী ইতিবাচক পরিবর্তন আনছে, এবং তাদের প্রভাব বহুগুণ কারণ তারা তাদের সহযোগী বিজয়ীদের সাথে নতুন সম্পর্ক এবং সহযোগিতা গড়ে তুলবে।”

এ প্রতিযোগীতাটি চলতি বছরের ওয়ার্ল্ড কন্ট্রাসেপশন ডে, ২৬ সেপ্টেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে সমাপ্ত হচ্ছে।

-কেএম

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter