“লাট্টু”তে নিজের পণ্য নিজেরাই বিক্রির সুযোগ

“লাট্টু”তে নিজের পণ্য নিজেরাই বিক্রির সুযোগ

তথ্য প্রযুক্তিঃ
ডটলাইন্স বাংলাদেশের নতুন উদ্যোগ “লাট্টু”নিয়ে এল এক অনন্য অনলাইন প্ল্যাটফর্ম, যেখানে যে কেউ নিজেই নিজের পছন্দমতো অনলাইন স্টোর খুলে খুব সহজে নিজেরাই পণ্য বিক্রয় করতে পারবে।

এখানে একদিকে যেমন এই অনলাইন উদ্যোক্তাদের নিজস্ব পণ্য বা সেবা বিপণনের সুযোগ রয়েছে, তেমনি লাট্টু প্ল্যাটফর্মের অধীনে যে ২৫ হাজারেরও বেশি দেশি বিদেশি ব্র্যান্ডের উৎকৃষ্ট সব পণ্য রয়েছে তা থেকেও বেছে নিয়ে স্টোর শুরু করতে পারেন যে কেউ প্রোডাক্ট সোর্সিং এর ঝামেলা ছাড়াই।

একেবারে নতুন ধরনের এই চমকপ্রদ অনলাইন প্ল্যাটফর্ম “লাট্টু দেশের স্বনামধন্য ডটলাইন্স গ্রুপেরই একটি সহযোগী প্রতিষ্ঠান।

ডটলাইন্স বাংলাদেশ এদেশের আনাচে কানাচে সর্বস্তরের মানুষের কাছে হাইস্পিড ও উচ্চসেবামান সম্পন্ন ইন্টারনেটের সর্বোচ্চ সুফল পৌঁছে দেয়ার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন অভিনব প্রকল্পের আওতায় নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায়, অতিমারীকবলিত হাজারো বেকার ও দুর্দশাপন্ন মানুষের জন্য জীবিকা নির্বাহের নিশ্চয়তার আশা নিয়েই “লাট্টু প্ল্যাটফর্ম এর উৎপত্তি।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে জোরকদমে এগিয়ে চলা অগ্রগণ্য প্রতিষ্ঠান ডটলাইন্স গ্রুপ এর প্রতিষ্ঠাতা মাহাবুবুল মতিন এদেশের কাজ হারানো ও বেকার জনগোষ্ঠী যেন ইন্টারনেট ব্যবহার করে একটি অত্যাধুনিক ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে খুব সহজেই নিজেই স্টোর খুলে নিজেই পণ্য বিপণন করে স্বাবলম্বী হয়ে উঠতে পারে, এমন স্বপ্নেরই বাস্তব রূপ দিয়েছেন “লাট্টু” র মাধ্যমে।

লাট্টু প্ল্যাটফর্মের সবচেয়ে সুবিধাজনক ব্যাপারটি হচ্ছে, কোন রকম মূলধন না থাকলেও এখানে অনলাইন স্টোর খোলার সুযোগ রয়েছে। উপরন্তু, পণ্য অর্ডার হলে “লাট্টু” র পক্ষ হতেই উদ্যোক্তা পণ্য সংগ্রহ ও ডেলিভারি সহ সকল ধরনের লজিস্টিকস সেবা পেয়ে থাকেন।

নির্ভুল automated ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে একাউন্টস বা হিসাবরক্ষণ সম্পন্ন হবার পর বিক্রির কমিশন ও আয় সরাসরি উদ্যোক্তাদের সংশ্লিষ্ট একাউন্টে চলে যায়।

এই পুরো প্রক্রিয়াটি এস্ক্রো সাপোর্ট যুক্ত অর্থাৎ এখানে “লাট্টু” একটি নিরপেক্ষ তৃতীয় পক্ষ হিসেবে পণ্য ডেলিভারি ও অর্থ ট্রানজাকশনের কাজটি করে।

সারা দেশে লাট্টুর ১০ হাজারের বেশি উদ্যোক্তা প্ল্যাটফর্ম আছে, যার মাধ্যমে যে কেউ যেকোন সময় অনলাইন ব্যবসা শুরু করতে পারেন, নিজের ব্যবসার প্রসার ঘটাতে পারেন।

ডটলাইন্স গ্রুপের প্রেসিডেন্ট মাহাবুবুল মতিন বিশ্বাস করেন, লাট্টু প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে৷ তিনি বলেন, “১৮ কোটি মানুষের এই দেশে, মানুষের বেকারত্ব দূর করতে লাট্টু এক উদ্ভাবনী প্লাটফর্ম।

মানুষ এখন থেকে ঘরে বসেই কোনো রকম পুঁজি বিনিয়োগ না করে তার নিজস্ব নামে একটি অনলাইন স্টোর খুলে নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারে যেকোন সময়।

মাহাবুবুল মতিন এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, “লাট্টু” আমাদের দেশের নারীদের আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠার জন্য এক অভূতপূর্ব ভূমিকা পালন করবে।

ডটলাইন্স গ্রুপের অন্য সকল উদ্যোগের মতই “লাট্টু একেবারে দেশের গ্রাম- শহর নির্বিশেষে সকল প্রত্যন্ত অঞ্চলে ইন্টারনেট প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষের জীবনমান উন্নয়নের একটি সোপান হিসেবে বিবেচিত হবার যোগ্যতা রাখে।

অনলাইন ব্যবসায় উদ্যোগের সাহায্যে দেশের বিশাল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর বেকারত্ব সমস্যা সমাধানের ডিজিটাল বিপ্লব ঘটাতে “লাট্টু বাংলাদেশে একটি মাইলফলক প্ল্যাটফর্ম।

-শিশির

Print Friendly, PDF & Email
FacebookTwitter